সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:১৫ অপরাহ্ন

সকল ধর্মের লোকজনই স্বাধীন -বিমান প্রতিমন্ত্রী এড: মাহবুব আলী

নুর উদ্দিন সুমন, বার্তা সম্পাদক
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৭ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৩১৫ বার পঠিত

নিজস্ব প্রতিনিধি॥ বাহুবলের শ্রীশ্রী শচীঅঙ্গন ধাম জয়পুরে মিরপুর বাজার দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির উদ্যোগে ৪র্থ বারের মত রবিবার সকাল ১০টায় কুমারী পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট মোঃ মাহবুব আলী।বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক মহিলা এমপি আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবির মুরাদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক তারেক মোহাম্মদ জাকারিয়া, বাহুবল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আয়েশা হক, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ আলম চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান টেনু মিয়া চৌধুরী, চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ, চেয়ারম্যান তৌহিদুল আলম চৌধুরী, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ সভাপতি নলিনী কান্ত রায় নীরু, সিনিয়র সহ-সভাপতি অনুপ কুমার দেব মনা, বাহুবল পূজা উদযাপন পরিষদ সভাপতি মনোরঞ্জন রায়, সাধারণ সম্পাদক নিখিল সাহা।বক্তব্য রাখেন হাফিজুর রহমান, শহিদুল ইসলাম, সিরাজুল হক, শাহ আহমেদ আওলাদ, আলহাজ¦ শেখ মোহাম্মদ ফিরোজ মিয়া, আব্দুল কদ্দুছ সরদার মাখন, তাজুল ইসলাম, দেওয়ান আব্দুল মতিন, বেনু রঞ্জন রায়, ওসি কামরুজ্জামান, অসীম রায়, অ্যাডভোকেট অর্জুন চন্দ্র রায়, ধীরেন্দ্র লাল রায়, রজত রায় প্রমূখ। অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রতিমন্ত্রীকে ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক নিরঞ্জন সাহা নীরু।কুমারী পূজা উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বিকাশ চন্দ্র দেব। অভিজিৎ ভট্টাচার্য্যরে পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী বলেন, সকল ধর্মের লোকজনই স্বাধীন,আমাদের দেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার সব ধর্মের লোকদের নিজ নিজ ধর্ম পালনে অবাদ স্বাধীনতা দিয়েছেন। তাই বাংলাদেশে বসবাসকারী সকল ধর্মের লোকজনই স্বাধীনভাবে নিজ নিজ ধর্ম পালন করে যাচ্ছেন। তিনি কুমারী পূজার মাধ্যমে নারীর প্রতি সম্মানের ইঙ্গিত করে বলেন, আমাদের সবাইকে নারীর প্রতি যথোপযুক্ত সম্মান প্রদর্শন করতে হবে। নারীকে তার প্রাপ্য সম্মান দিলে দেশে যেমন নারী নির্যাতনের হার কমবে তেমনি পারিবারিক শান্তি বৃদ্ধি পাবে। তিনি মন্দিরের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজে সহযোগিতার আশ্বাস দেন। রবিবার সকাল ১১টায় কুমারী পুজা শুরু হয়। ১২টায় অনুষ্ঠিত হয় অঞ্জলী প্রদান। এ বছর কুমারী রূপে পূজিত হন সিলেট চন্দ্র গ্রামের দ্বিজব্রত চক্রবর্তীর কন্যা শ্রীমতি শান্তনী চক্রবর্তী। তার বছর ৯ উর্ধ্বে হওয়ায় কুমারী শাস্ত্রীয় নাম রাখা হয়েছে অপরাজিতা। এতে হাজার হাজার ভক্তের ঢল নামে। সন্ধ্যায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে ধর্মীয় সঙ্গীত পরিবেশন করেন কলিকাতার বিশিষ্ট শিল্পীবৃন্দ। আজ সোমবার মহানবমী পূজা অনুষ্ঠিত হবে। দুপুরে পদাবলী কীর্ত্তন ও বিকেল ৩টায় ভক্তদের মাঝে আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে মহাপ্রসাদ বিতরণ করা হবে। সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হবে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন হবিগঞ্জের বিশিষ্ট শিল্পীবৃন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com