সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১১:০৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ঢাকা সিলেট মহাসড়কের ঝুঁকিপূর্ণ সেতু দিয়ে চলছে ভারী যানবাহন দেশ স্বাধীন হলেও গোলগাঁও বাসী এখনও পরাধীন সাতছড়ি ত্রিপুরা পল্লীর বাসিন্দারা আতঙ্কে \ পাহাড়ী ঢলে ধ্বসে পড়ছে টিলা বাহুবলে পোল্ট্রি ব্যবসায়ীকে হত্যার অভিযোগ মাধবপুরে বাস চাপায় শিশুর মৃত্যু চুনারুঘাটে ৬ বছরের ব্যবধানে দুই ভাইকে হত্যা ॥ গ্রেপ্তার ৩ ঈদ উল আযহা উপলক্ষে পৌর এলাকার ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সম্মানী ভাতা প্রদান বানিয়াচং হাসপাতালে অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন চুনারুঘাটে চেয়ারম্যান পদে সৈয়দ লিয়াকত হাসানের চমক ॥ কাইয়ূম ও খাইরুন ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত সিলেট ওসমানী হাসপাতালে পানি ঢুকে চরম দুর্ভোগ

সাকিবের নেতৃত্বেই ২০২৩ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৩৪০ বার পঠিত

স্পোর্টস ডেস্কঃ খবরটা এলো গতকাল সন্ধ্যার পর। বাংলাদেশের প্রাণ সাকিব আল হাসানকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। খবরটা মানতে পারছিল না ভক্তরা। মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সামনে জড়ো হচ্ছিল তারা। সাকিবকে মাঠে দেখতে চায় সবাই। কারো মুখে স্লোগান, কেউ বাকরুদ্ধ। কিন্তু অধিকাংশ মানুষের চোখে পানি, ‘সাকিব ছাড়া ক্রিকেট? ভাবা যায়?’
সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় তার অনেক ভক্ত, সতীর্থই কেঁদেছেন নিশ্চিত। বাংলাদেশ ক্রিকেটের আরেক বড় বিজ্ঞাপণ মাশরাফিও সাকিবের নিষেধাজ্ঞায় কষ্ট পেয়েছেন। ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘দীর্ঘ ১৩ বছরের সহযোদ্ধার আজকের ঘটনায় নিশ্চিতভাবেই কিছু বিনিদ্র রাত কাটবে আমার। তবে কিছুদিন পর এটা ভেবেও শান্তিতে ঘুমাতে পারব যে, তার নেতৃত্বেই ২০২৩ সালে আমরা বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলব। কারণ নামটি তো সাকিব আল হাসান…!!!’

তিনটি অভিযোগ এনে সাকিব আল হাসানকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি। তবে ভুল স্বীকার করায় এক বছরের শাস্তি কমানো হয়েছে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিনি ফিরবেন ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর।
মঙ্গলবার ওই তথ্য দেয় আইসিসি। নিজেদের ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করেছে ক্রিকেটের নীতিনির্ধারক সংস্থা।
সাকিব আল হাসান বাংলাদেশে জাতীয় ক্রিকেট দলের টেস্ট ও টি টোয়েন্টি ফরম্যাটের অধিনায়ক। আগামী মাসেই ভারত সফর শুরু করছে বাংলাদেশ। ওই সফরে কেবল টেস্ট ও টি টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ। আইসিসির ওই নিষেধাজ্ঞার কারণে তাকে ছাড়াই ভারত সফর করবে বাংলাদেশ।
অভিযোগ উঠেছে, প্রায় দুই বছর আগে এক ক্রিকেট জুয়াড়ির কাছ থেকে ম্যাচ পাতানোর প্রস্তাব পান সাকিব। সঙ্গে সঙ্গে সেই প্রস্তাব নাকচও করে তিনি। কিন্তু ঘটনাক্রমে বিষয় আইসিসির দুর্নীতি দমন বিভাগকে জানাননি সাকিব। দুই বছর বাদে সেই বিষয়টি সামনে এসেছে। বিষয়টি তদন্তের জন্য সাকিবের সঙ্গে যোগাযোগও করেছে আইসিসি। সবমিলিয়ে তথ্য না জানানোর অপরাধে আইসিসির নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়লেন তিনি।

এর আগে ২০০৮ সালের মার্চে ঢাকায় আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের সময়ও জুয়াড়িদের ফোন পেয়েছিলেন সাকিব। বাজে পারফরম্যান্সের বিনিময়ে ‘স্পন্সরশিপ’ অফার করা হয়েছিল তাঁকে।

সাকিব তখন সঙ্গে সঙ্গেই বিসিবিকে সে প্রস্তাবের কথা জানান। বিষয়টি জানান আকসুর তখনকার রিজিওনাল ম্যানেজার কর্নেল কাজা নুরকেও। সে সিরিজে আয়ারল্যান্ডকে ৩-০ ব্যবধানে হারায় বাংলাদেশ।

সুত্রঃ বাংলাদেশ জার্নাল

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com