সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ০৩:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ঢাকা সিলেট মহাসড়কের ঝুঁকিপূর্ণ সেতু দিয়ে চলছে ভারী যানবাহন দেশ স্বাধীন হলেও গোলগাঁও বাসী এখনও পরাধীন সাতছড়ি ত্রিপুরা পল্লীর বাসিন্দারা আতঙ্কে \ পাহাড়ী ঢলে ধ্বসে পড়ছে টিলা বাহুবলে পোল্ট্রি ব্যবসায়ীকে হত্যার অভিযোগ মাধবপুরে বাস চাপায় শিশুর মৃত্যু চুনারুঘাটে ৬ বছরের ব্যবধানে দুই ভাইকে হত্যা ॥ গ্রেপ্তার ৩ ঈদ উল আযহা উপলক্ষে পৌর এলাকার ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সম্মানী ভাতা প্রদান বানিয়াচং হাসপাতালে অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন চুনারুঘাটে চেয়ারম্যান পদে সৈয়দ লিয়াকত হাসানের চমক ॥ কাইয়ূম ও খাইরুন ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত সিলেট ওসমানী হাসপাতালে পানি ঢুকে চরম দুর্ভোগ

শায়েস্তাগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার নাজমুল হোসেন’র বড় ভাইয়ের মৃত্যু

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৭ মার্চ, ২০২২
  • ১৭০ বার পঠিত

মোঃ তৌহিদ মিয়াঃ
হবিগঞ্জ জেলা দলের ক্রিকেটার ও জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার নাজমুল হোসেন এর বড় ভাই দেলোয়ার হোসেন জন্টু (৩৮) বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। রবিবার বিকেলে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নসরতপুর এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে জন্টুর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাজ করার সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। জন্টু জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার
মরহুম মোক্তার হোসেন এর ৩য় সন্তান।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নসরতপুর এলাকায় নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ছাদে হাতে একটি লোহার পাইপ নিয়ে কাজ করার সময় অসাবধানতাবসত ৩৩ হাজার কেভি বিদ্যুৎ লাইনের পাশে গেলে সে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়। ঘটনাস্থলেই সে প্রাণ হারায়। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা আধুনিক জেলা সদর হাসপতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
দেলোয়াড় হোসেন জন্টু একজন কৃতি ক্রিকেটার। এছাড়াও সে ফুটবলসহ অন্যান্য খেলায়ও পারদর্শী ছিল। জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন পরিষদের সদস্য ছাড়াও জেলার বিভিন্ন বয়স ভিত্তিক দলের প্রশিক্ষকের দায়িত্বও সে পালন করে। তার মৃত্যুতে হবিগঞ্জের ক্রীড়াঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি অজয় দেব এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নসরতপুর এলাকার নিজ ব্যবসায়ি প্রতিষ্ঠানে কাজ করার সময় অসাবধানতাবসত বিদ্যুৎস্পৃৃষ্ট হয় জন্টু। এসময় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
হবিগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক বদরুল আলম বলেন, জন্টু একজন ভাল খেলোয়াড় ও সংগঠক ছিল। তার মৃত্যু ক্রীড়াঙ্গনের জন্য অনেক বড় ক্ষতি। জন্টু মৃত্যুকালে স্ত্রী ও এক ছেলে সন্তানসহ বহু আত্মীয়-স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখে যায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com