মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন

চুনারুঘাটে পাহাড়ী এলাকার কিং ইউপি সদস্য মিজান কারাগারে

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১০ আগস্ট, ২০২০
  • ২৪৫ বার পঠিত

নিজস্ব প্রিতিনিধি: জেলার চুনারুঘাট উপজেলার রানিগাঁও ইউনিয়নের পাহাড়ী অঞ্চল হাকাজুড়া এলাকার অপরাধ জগতের কিং ওয়ার্ড মেম্বার ও তার সহযোগীদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে ক্ষতবিক্ষতের ঘটনায় আদালতে হাজিরা দিতে গিয়ে জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিনা বেগম এর আদালতে হাজিরা দিতে যান মিজান মেম্বার ও তার সহযোগী আব্দুর রহমান। এসময় বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। জানা গেছে, গত ২৫ মার্চ চন্দু মিয়া গংরা কৃশি জমির জন্য পানি নিতে চাইলে মিজান মেম্বারের দলবল বাধা দেয় এর জের ধরে তাদের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয় । পরে হাকাজুড়া সুনাজুরা নামকস্থানে মেম্বার মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে একদল লোক তার বাহিনী নিয়ে হাকাজুরা সোনাজুরা এলাকায় পরিকল্পিতভাবে পুর্ব থেকে উৎপেতে থাকা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে একদল লোক চন্দু ও আক্তার নামে দইজনকে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করে। পরে তাদেরকে আশঙ্কা জনক সিলেট পাঠানো হয়। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন। ঘটনার দিন পুলিশ মিজান মেম্বারের চাচাত ভাই অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য আব্দুল হক নামের একজনকে আটক করেন। এসময় মিজান মেম্বার পালিয়ে আত্নগোপন করে। এই ঘটনায় চন্দু মিয়ার ভাই কাজল মিয়া বাদী হয়ে চুনারুঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘদিন পর সেই মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে যান মিজান মেম্বারসহ দুজন। এ তথ্য সত্যতা নিশ্চিত করেন বাদীর আইনজীবী এডভোকেট আব্দুল হাই । তাদেরকে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় স্বস্তি ফিরে আসে। এলাকার নিরীহ মানুষের একটাই দাবী তার যেন শাস্তি হয় এবং তাদের অত্যাচার থেকে নীরহ মানুষ বাচতে চায়। অনুসন্ধানে জানাগেছে আক্তার, চন্দু ছাড়াও মিজান মেম্বারের বিরুদ্ধে জুলুম নির্যাতন, পাহাড় দখল, বিভিন্ন কেলেঙ্কারিসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মিজান মেম্বারের অভিযোগ দেয় না কেউ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com