মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৫:২৮ অপরাহ্ন

সৌদি থেকে ভিডিও বার্তা পাঠানো হুসনা পুলিশের ‌‘হেফাজতে’

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৬ নভেম্বর, ২০১৯
  • ২৯৭ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্টঃ বাঁচার আকুতি জানিয়ে স্বজনদের কাছে ভিডিও বার্তা পাঠানোর পর উদ্ধার হয়েছেন সৌদি আরবে নির্যাতনের শিকার হুসনা আক্তার (২৫)।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলমের নির্দেশনায় হুসনা আক্তারকে সোমবার উদ্ধার করা হয়। রাতে এ প্রতিবেদন লেখার সময় হুসনা আক্তার জেদ্দা থেকে প্রায় এক হাজার কিলোমিটার দূরে নাজরান পুলিশের হেফাজতে ছিলেন।

এর আগে সৌদি আরবে নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচার আকুতি জানিয়ে স্বজনদের কাছে ভিডিও বার্তা পাঠান হুসনা আক্তার। তিনি হবিগঞ্জের আজমিরিগঞ্জের আনন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা। তার পাঠানো ওই ভিডিও ক্লিপটি ইতিমধ্যে ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

হুসনা আক্তার ১৭ দিন আগে একটি এজেন্সির মাধ্যমে সৌদি আরব পাড়ি জমান। সেখানে গৃহকর্তার নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে প্রথমে স্বামী শফিউল্লাকে ভিডিও বার্তাটি পাঠান। তারপর হুসনার স্বামী ওই এজেন্সিতে গিয়ে এসব কথা জানালে এজেন্সির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা তার কাছে এক লাখ টাকা দাবি করেন এবং হুসনা সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেন। পরে শফিউল্লা কোনো উপায় না দেখে স্ত্রীকে বাঁচাতে ওই ভিডিও তার এক ভাইয়ের মাধ্যমে ফেইসবুকে পোস্ট করান।

সৌদি থেকে পাঠানো ভিডিও বার্তায় হুসনা বলেন, ‘আমি মোছা হুসনা আক্তার। আমার দালালে ভালা কথা কইয়া-কামের কথা কইয়া আমারে পাঠাইছে সৌদি। সৌদি আরবের নিজরাল (নাজরান) এলাকায় আমি কাজ করি। আমি এখানে আইসা দেখি কাজ ভালা না। আমার সাথে ভালা ব্যবহার করে না ওরা। ওরা আমার ওপর অত্যাচার করে। এখন এরার অত্যাচার আমি সহ্য করতে পারি না দেইক্কা কইছি আমি যাইমু গা। এই কথা বলায় ওরা আরও বেশি অত্যাচার করে। আমি এজেন্সির অফিসে ফোন দিছি। অফিসের এরা আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করে।’

ভিডিও বার্তায় হুসনা আরও বলেন, ‘আমি আর পারতাছি না। তোমরা যেভাবে পার আমারে বাঁচাও। এরা আমারে বাংলাদেশ পাঠাইতো চায় না। এরা আমারে ইতা করতাছে। অনেক অত্যাচার করতাছে। আমারে ভালা কামের (কাজের) কথা কইয়া পাঠাইছে দালালে। আমারে ইতা করতাছে ওরা। আমি আর পারতাছি না সহ্য করতাম। তোমরা যেভাবে পার আমারে নেও।’

উল্লেখ্য, এর আগে সৌদি আরবে নির্যাতনের শিকার হয়ে জীবন বাঁচানোর আকুতি জানিয়ে ফেইসবুকে ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছিলেন পঞ্চগড়ের সুমি আক্তার নামে এক নারী। তার ভিডিও ভাইরাল হলে দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে। পরে চলতি মাসের ১৫ তারিখ জেদ্দার বাংলাদেশ কনস্যুলেটের সহায়তায় সৌদি থেকে দেশে ফেরেন সুমি।
সৌজন্যেঃ দেশ রূপান্তার

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com