সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ০৩:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ঢাকা সিলেট মহাসড়কের ঝুঁকিপূর্ণ সেতু দিয়ে চলছে ভারী যানবাহন দেশ স্বাধীন হলেও গোলগাঁও বাসী এখনও পরাধীন সাতছড়ি ত্রিপুরা পল্লীর বাসিন্দারা আতঙ্কে \ পাহাড়ী ঢলে ধ্বসে পড়ছে টিলা বাহুবলে পোল্ট্রি ব্যবসায়ীকে হত্যার অভিযোগ মাধবপুরে বাস চাপায় শিশুর মৃত্যু চুনারুঘাটে ৬ বছরের ব্যবধানে দুই ভাইকে হত্যা ॥ গ্রেপ্তার ৩ ঈদ উল আযহা উপলক্ষে পৌর এলাকার ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সম্মানী ভাতা প্রদান বানিয়াচং হাসপাতালে অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন চুনারুঘাটে চেয়ারম্যান পদে সৈয়দ লিয়াকত হাসানের চমক ॥ কাইয়ূম ও খাইরুন ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত সিলেট ওসমানী হাসপাতালে পানি ঢুকে চরম দুর্ভোগ

চুনারুঘাটে সড়ক নির্মানে অনিয়ম \ কাজ শেষ হওয়ার সাথে সাথেই উঠে যাচ্ছে বিটুমিন ও পাথর

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২৭ জুন, ২০২৩
  • ৬৫ বার পঠিত

আবুল কালাম আজাদ ঃ পুরাতন ঢাকা সিলেট মহাসড়কের হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার চন্ডিছড়া মাজার থেকে সাতছড়ি পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার সড়কে পুন:মেরামতে নি¤œমানের কাজ করা হচ্ছে। একদিকে কাজ করা হচ্ছে অন্যদিকে বিটুমিন ও পাথর উঠে যাচ্ছে। এঅবস্থায় পুরো রুপে ফিওে আসছে ভাঙ্গাছুড়া সড়ক। সড়ক ও জনপথ বিভাগ বলছে বৃষ্টির পানিতে বিটুমিন চলে যাওয়ায় এমন হয়েছে। ঠিকাদার পুনরায় এ কাজ করে দিবেন সওজ জানিয়েছে। শনিবার সরজমিনে দেখা যায়, পুরাতন ঢাকা সিলেট সহাসড়কের হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার চন্ডিছাড় মাজার গেইট থেকে সাতছড়ি পর্যন্ত ৫ কিলোমিটার সড়ক পুন:মেরামত করা হচ্ছে। ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে বিএইচএসডি পদ্ধতিতে নামমাত্র পাথর আর বিটুমিন দিয়ে সড়ক পুন:মেরামত করা হচ্ছে। একদিকে মেরামত হচ্ছে, অন্যদিকে পাথর উঠে যানবাহনের চাকার চাপে চলে যাচ্ছে রাস্তার পাশে। কোন কোন স্থানে পাথর জমা হয়ে দুর্ঘটনার ঝুকি দেখা দিয়েছে। কাজ করে যাওয়া স্থানের ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ পাথর উঠে গেছে। অনেকেই বলছেন, সড়ক মেরামতের আগেই ভাল ছিল, এখন আরো খারাপ হয়েছে,এতে সড়কে দুর্ঘটনার আশংকা রয়েছে। নামমাত্র বিটুমিন ব্যবহার করায় সড়কের পাথর বসছে না। এছাড়া পাথর দেওয়া হচ্ছে খুব কম পরিমানে। বিষয়টি শনিবার থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উঠে আসলে টনক নড়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের। বিটুমিন উঠে যাওয়া স্থানে পুনরায় এ কাজ করা হবে জানিয়েছে সওজ বিভাগ। এ বিষয়ে হবিগঞ্জের সওজের নির্বাহী প্রকৌশলী শাকিব আহমেদকে মোবাইলে কল দিয়েও পাওয়া যায়নি। তবে সড়কে তদারকির দায়িত্বে থাকা উপ সহকারি প্রকৌশলী সাদ্দাম হোসেন জানান, কাজ করার পর পরই ব”ষ্টিরকারণে বিটুমিন উঠে গেছে। এছাড়া এ কাজের পাথর ১০ থেকে ১৫ ভাগ এমনিতেই উঠে যাবে। তিনি জানান, বিটুমিন উঠে যাওয়া ¯’ানগুলোতে আমরা পুনরায় মেরামত করে দিব। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল কাদির লস্কর জানান, নির্বাহী প্রকৌশলী সাকিব আহমেদ উক্ত সড়কের কাজ পুনরায় করে দেওয়ার কথা জানিয়েছে। ইতোমধ্যে তিনি ঠিকাদারকে কাজ পুনরায় করে দেওয়ার কথা জানিয়েছেন। সেপ্টেম্বরে চালু হ”েছ বাল্লা ¯’লবন্দর- ¯’ল বন্দর চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, চুনারুঘাট হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার বাল্লা ¯’ল বন্দর চালু হ”েছ সেপ্টেম্বরেই। চলতি জুন মাসে কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও করোনার কারণে কাজ কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। তাই জুলাই ও আগষ্ট মাসের মধ্যে কাজ সম্পন্ন হবে এবং সেপ্টেম্বর মাসেই বন্দর উদ্বোধন করা হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ¯’লবন্দর কর্তৃপরে চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলমগীর। তিনি শনিবার দেশের ২৩তম বাল্রা ¯’লবন্দর পরিদর্শন করে এতথ্য জানান। নির্মান প্রতিষ্ঠান সোনেক্র ইন্টারন্যাশনাল এর স্বত্বাধিকারী মোঃ আব্দুর রাজ্জাক জানান, ২০১৮ সালে কাজ শুরু হয়, চলতি বছরের জুন মাসে কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল, কিš’ করোনার কারণে কিছুটা দেরি হয়েছে। তারপরও আমরা করোনার মধ্যেই কাজ করেছি। আগামী দুই মাসের মধ্যে সকল কার্যক্রম সমাপ্ত হবে এবং বন্দর হস্তান্তর করা হবে। তিনি জানান, ৪৯ কোটি টাকা ব্যয়ে শেড, ব্যারাক, ইমিগ্রেশন, আবাসিক এলাকা এবং ইয়ার্ড এর কাজ প্রায় শেষ দিকে। চলছে ফিনিশিং এর কাজ। বাল্লা ¯’লবন্দর আধুনিক প্রকল্পের সচিব আমিনুল ইসলাম জানান, ২০১৬ সালের ৩০ জুন বাল্লা ¯’ল বন্দরকে দেশে ২৩তম ¯’ল বন্দর ঘোষনা করেন তৎকালীন নৌ পরিবহন মন্ত্রী মোঃ শাহজাহান খান। জমি অধিগ্রহন, জমি মালিকদের ক্ষতিপুরণ প্রদানসহ নানা কারণে বন্দরের কাজ ২০১৮ সালে শুরু হয়। সাড়ে ১৩ একর জমির উপর নির্মান করা হ”েছ বাল্লা ¯’ল বন্দর। এ বন্দও নির্মান হলে বাংলাদেশের সাথে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আমদানি রপ্তানি বানিজ্য আরো বাড়ার পাশাপাশি এ অঞ্চলের বন্ধ হয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহি শায়েস্তাগঞ্জ-বাল্লা রেল যোগাযোগ পুনরায় চালুর স্বপ্ন দেখছে এলাকাবাসী। বাল্লা ¯’লবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক সমিতির সদস্য জালাল উদ্দিন খান জানান, ব্যবসায়ীরা অধির আগ্রহে অপো করছেন বন্দরের কাজ চালু হওয়ার। বর্তমান যে ¯’ান দিয়ে আমদানি-রপ্তানিতে ব্যয় বেশী হওয়ায় ব্যবসায়ীরা লাভবান হতে পারছেন না। তারপরও নদীতে নৌকা দিয়ে মালামাল আনা নেয়া হ”েছ। বন্দরটি চালু হলে শুধু পণ্য আনা নেয়ার কাজই হবে না। এই বন্দর দিয়ে প্রচুর লোকজন আসা যাওয়া করবেন। ফলে উভয় দেশের জনগণ উপকৃত হবেন। চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মতকর্তা সিদ্ধার্থ ভৌমিক জানান, চুনারুঘাটবাসী দীর্ঘদিনের স্বপ্ন এ বন্দর চালু হলে এখানকার মানুষের কর্মসং¯’ানের পাশাপাশি মানুষের জীবণমানও বাড়বে। ত্রিপুরার সাথে বাড়বে বানিজ্য।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com