সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ০৪:৩০ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ঢাকা সিলেট মহাসড়কের ঝুঁকিপূর্ণ সেতু দিয়ে চলছে ভারী যানবাহন দেশ স্বাধীন হলেও গোলগাঁও বাসী এখনও পরাধীন সাতছড়ি ত্রিপুরা পল্লীর বাসিন্দারা আতঙ্কে \ পাহাড়ী ঢলে ধ্বসে পড়ছে টিলা বাহুবলে পোল্ট্রি ব্যবসায়ীকে হত্যার অভিযোগ মাধবপুরে বাস চাপায় শিশুর মৃত্যু চুনারুঘাটে ৬ বছরের ব্যবধানে দুই ভাইকে হত্যা ॥ গ্রেপ্তার ৩ ঈদ উল আযহা উপলক্ষে পৌর এলাকার ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সম্মানী ভাতা প্রদান বানিয়াচং হাসপাতালে অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন চুনারুঘাটে চেয়ারম্যান পদে সৈয়দ লিয়াকত হাসানের চমক ॥ কাইয়ূম ও খাইরুন ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত সিলেট ওসমানী হাসপাতালে পানি ঢুকে চরম দুর্ভোগ

সাটিয়াজুরী রেল ষ্টেশনটি বন্ধ থাকায় হাজার মানুষের দুর্ভোগ ॥ নষ্ট হচ্ছে সরকারী সম্পত্তি ॥ দেখার যেন কেউ নেই

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৩১ আগস্ট, ২০২০
  • ২৩১ বার পঠিত

কাজী মাহমুদুল হক সুজন ॥ হবিগঞ্জের বাহুবল ও চুনারুঘাট উপজেলার মধ্যেবর্তী ঐতিহ্যবাহী সাটিয়াজুরী রেল স্টেশনটি বন্ধ ঘোষনার পর থেকে এলাকার জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারন করেছে। নষ্ট হচ্ছে সরকারের লক্ষ লক্ষ টাকার সম্পদ। একসময় আশেপাশের শতাধিক গ্রামের লোকজন এ স্টেশন থেকে বিভিন্ন জায়গায় যাতায়াত করতেন।একমাত্র যোগাযোগ মাধ্যমই ছিল সাটিয়াজুরী রেল ষ্টেশন। সে সুবাদে যাত্রীর পদভারে মুখর থাকত এ স্টেশনটি। দিনভর থাকত কর্মব্যস্ততা। এলাকাবাসী জানায়, ব্রিটিশ আমলে এ রেল স্টেশনটি চালু হয়। সে সময় একাধিক ট্রেন থামত। পরবর্তীতে আস্তে আস্তে এ স্টেশনে ট্রেনের সংখ্যা কমতে থাকে। বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে লোকার ট্রেন গুলো বন্ধ থাকার কারণে এ স্টেশনে কোন ট্রেনই থামছে না। এতে এ রেল স্টেশন একটি পরিত্যক্ত রেল স্টেশনে পরিণত হচ্ছে। তাছাড়া এ রেল স্টেশনে এক যুগেরও বেশি সময় ধরে স্টেশন মাষ্টার না থাকায় নষ্ট হচ্ছে এ স্টেশনের সরকারী সম্পত্তি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,রেল স্টেশন বলতে শুধু ব্রিটিশ আমলের সেই পাকা ভবনটিই আছে তাও আবার পশুপাখির আবাসস্থলে পরিণত হয়েছে। অফিস কক্ষের দরজা জানালা গুলো ও ভেঙে গেছে। ভেতরে তাকালে দেখা যায় অনেক জিনিস ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে নষ্ট হচ্ছে অনেক মূল্যবান জিনিস। সাটিয়াজুরী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এডভোকেট সরকার মোঃ শহীদ ও ভাদেশ্বর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল হাশিম জানান,এ রেল স্টেশনটি একসময় খুবই জনপ্রিয় রেলওয়ে স্টেশন ছিল।১৯৯৮/৯৯ সনে সরকার ষ্টেশনটিকে বন্ধ ঘোষনা করলে এলাকার মানুষ রেল লাইন অবরোধসহ বিভিন্ন কূমসুচি পালন করলে কতৃপক্ষ স্টেশন মাষ্টার আপ ও ডাউন ট্রেন স্টপিজ দিত। কিন্তু কয়েক বছর যেতে না যেতেই আবারও সরকার স্টেশনটিকে বন্ধ ঘোষনা করে। ফলে এলকার প্রায় শতাধিক গ্রামের জনদুর্ভোগ বেড়ে যায়। এ স্টেশন থেকে আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের মৃৎশিল্পীরা তারদের পণ্য গুলো বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করতেন তাছাড়া ঐ এলাকার কৃষকরা খুব উপক্রিত হতেন এ স্টেশনের কারণে। এলাকাবাসীর দাবি এ সাটিয়াজুরী রেল ষ্টেশনটি চালু করে ট্রেন স্টপিজ দিলে আবারও প্রান চাঞ্চল্য পাবে ষ্টেশনটি। দুর্ভোগ লাগব হবে এলাকার শতাধিক গ্রামের।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com