সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০:৫৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ঢাকা সিলেট মহাসড়কের ঝুঁকিপূর্ণ সেতু দিয়ে চলছে ভারী যানবাহন দেশ স্বাধীন হলেও গোলগাঁও বাসী এখনও পরাধীন সাতছড়ি ত্রিপুরা পল্লীর বাসিন্দারা আতঙ্কে \ পাহাড়ী ঢলে ধ্বসে পড়ছে টিলা বাহুবলে পোল্ট্রি ব্যবসায়ীকে হত্যার অভিযোগ মাধবপুরে বাস চাপায় শিশুর মৃত্যু চুনারুঘাটে ৬ বছরের ব্যবধানে দুই ভাইকে হত্যা ॥ গ্রেপ্তার ৩ ঈদ উল আযহা উপলক্ষে পৌর এলাকার ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সম্মানী ভাতা প্রদান বানিয়াচং হাসপাতালে অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন চুনারুঘাটে চেয়ারম্যান পদে সৈয়দ লিয়াকত হাসানের চমক ॥ কাইয়ূম ও খাইরুন ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত সিলেট ওসমানী হাসপাতালে পানি ঢুকে চরম দুর্ভোগ

চুনারুঘাটে বিদ্যুৎ পাওয়ার পূর্বেই অসংখ্য খুঁটি উপরে পরেছে মাটিতে

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৩ জুন, ২০২০
  • ২২৯ বার পঠিত

এফ এম খন্দকার মায়াঃ জেলার চুনারুঘাট উপজেলায় ৪নং পাইকপাড়া ইউনিয়নে দুই শতাধিক পরিবারের বিদ্যুৎ পাওয়ার স্বপ্ন আবারও বেস্তে গেলো।হতাশা আর নিরাশায় আবারও পাইকপাড়া নোয়াবাদ গ্রাম,গাংপাড় গ্রাম,বনগাঁও গ্রাম ও বড় দুলিয়া গ্রামের পরিবার গুলো। পাইকপাড়া ইউনিয়নের আলহাজ্ব মোজাফ্ফর উ‌দ্দিন উচ্চ বিদ‌্যালয় এর শিক্ষক শেখ সোহাগ আহমেদের মাধ্যমে জানা যায় দীর্ঘদি পাইকপাড়া নোয়াবাদ গ্রাম,গাংপাড় গ্রাম,বনগাঁও গ্রাম ও বড় দুলিয়া গ্রামের পরিবার গুলোর ছুুঁটাছুঁটির পরে বছর দুয়েক আগে এই এলাকায় বিদ্যুৎ লাইনের খুঁটি স্থাপিত হয়।এর পর আবারও থেমে যায় বছর তিন।বর্তমান সরকারের বিদ্যুৎ শতবাগ বাস্তবায়নের বদৌলতে পুনরায় গ্রামবাসী ও স্থানীয় প্রতিনিধিদের ছুটাছুটি শেষে আবার টানা হয় বিদ্যুৎ এর তার।আশা আর প্রত্যাশায় গ্রামবাসীরা যখন স্বপ্ন দেখতে শুরু করে ঠিক তখনই আবার ঘটে নিরাশার ঘটনা। গত বৃহস্পতিবার ০২/০৫/২০ইং তারিখে হালকা ঝর বাতাসে ধানি জমির উপড়ে পরে গেছে সবগুলো খুটি।
এমতাবস্থায় গ্রামবাসীর মনে নেমে আসে হতাশা । নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামবাসী জানান যে পল্লি বিদ্যুৎ কতৃপক্ষের দায়ছাড়া এ সঠিক কাজের তদারকির কারনেই এমন ভাবে সবগুলো খুটি উপড়ে পরেছে। তারা জানান,বিদ্যুৎ লাইনটি স্বয়ংক্রিয় হলে আজ হয়তো ঘটে যেতে পারতো ধ্বংসযজ্ঞ ও মৃত্যুর মত মর্মান্তিক ঘটনা।হয়তো সৃষ্টিকর্তাই বাঁচিয়েছেন। গ্রামবাসীর দাবি খু্ব দ্রুত সময়ের মধ্যে যেন লাইটি পুনঃসংস্কার ও সকলের বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ করার ব্যবস্থা করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com