সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ০৪:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ঢাকা সিলেট মহাসড়কের ঝুঁকিপূর্ণ সেতু দিয়ে চলছে ভারী যানবাহন দেশ স্বাধীন হলেও গোলগাঁও বাসী এখনও পরাধীন সাতছড়ি ত্রিপুরা পল্লীর বাসিন্দারা আতঙ্কে \ পাহাড়ী ঢলে ধ্বসে পড়ছে টিলা বাহুবলে পোল্ট্রি ব্যবসায়ীকে হত্যার অভিযোগ মাধবপুরে বাস চাপায় শিশুর মৃত্যু চুনারুঘাটে ৬ বছরের ব্যবধানে দুই ভাইকে হত্যা ॥ গ্রেপ্তার ৩ ঈদ উল আযহা উপলক্ষে পৌর এলাকার ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সম্মানী ভাতা প্রদান বানিয়াচং হাসপাতালে অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন চুনারুঘাটে চেয়ারম্যান পদে সৈয়দ লিয়াকত হাসানের চমক ॥ কাইয়ূম ও খাইরুন ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত সিলেট ওসমানী হাসপাতালে পানি ঢুকে চরম দুর্ভোগ

করোনার উপদ্রবের মধ্যে চুনারুঘাটে চলছে মশার উৎপাত

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৬ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৪৭ বার পঠিত

চুনারুঘাট(হবিগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ
করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মানুষজনকে ঘরবন্দি করে রেখেছে। উদ্বিগ্ন হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের মানুষের জীবনের বেশির ভাগ সময়ই এখন ঘরের ভেতর শুয়ে বসে কাটছে। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে বেড়ে চলা মশার উৎপাত ঘরে আটকে থাকা জীবনে অস্বস্তির মাত্রা আরও বাড়িয়ে তুলেছে। দেশে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর এটির সংক্রমণ ঠেকাতে নানা তৎপরতার মাঝে মশা নিধনের কার্যক্রম থমকে গেছে। ফলে করোনা সঙ্কটের মুখে এডিস মশাবাহিত আরেক প্রাণঘাতী ভাইরাস ডেঙ্গুর বিষয়টি চাপা পড়ে যাচ্ছে। জানাযায়, গরম বাড়ার সাথে সাথে হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে মশার পরিমাণ বাড়তে শুরু করেছে। তবে মশা নিধনে নিয়মিত কার্যক্রম না থাকায় পৌরসভা এলাকায় ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। চলতি বছরে ডেঙ্গুর প্রকোপে মশক নিধন কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনের পর থেকেই পৌরসভায় মশার ওষুধ ছিটানো হয়। বর্তমান সময়ে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। ফলে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ব্যস্ততা শুরু হয়। আর সঙ্গত কারণেই মশা নিধনে ওষুধ ছিটানোর বিষয়টি উপেক্ষিত থেকে যায়। পৌর এলাকার গুচ্ছগ্রাম, বড়াইল, হাতুন্ডা, আমকান্দি, নয়ানী, গোগাউড়া এলাকার বাসিন্দাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, রাতের পাশাপাশি এমনকি দিনের বেলাতেও উৎপাত চালায় মশা। সন্ধ্যার পর গুণগুণ করে গান গাইতে শুরু করে মশার দল। প্রতিকারের জন্য কয়েল জ্বালানো বা মশা মারার কোনও ওষুধ না ছিটালে শুরু হয় ‘মশার অ্যাকশন’। ক্ষুদ্র পতঙ্গটির কামড়ে নাভিশ্বাস ওঠার দশা হয়। এ ব্যাপারে পৌর এলাকার আব্দুল জলিল, আব্দুল হক, মোজাম্মেল হক, আয়াত আলী ও নুর মোহাম্মদ জানান, মশার অত্যাচারে সন্ধ্যার আগেই ঘরের জানালা দরজা বন্ধ রাখতে হচ্ছে। এতেও নিস্তার মিলছে না। ছোট বাচ্চাদের যাতে মশা না কামড় দেয় এজন্য হাতে সব সময় মশা মারার ব্যাট রাখতে হচ্ছে। জানাযায়, করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে পৌরশহর পরিচ্ছন্ন রাখার পাশাপাশি জীবাণুমুক্ত রাখার জন্য কাজ করছে পৌরকর্মীরা। করোনার বিস্তার ঠেকাতে পৌর শহরে প্রতিদিনই নিয়ম করে জীবাণুনাশক ছিটানোর কাজ করা হচ্ছে। ফলে মশক নিধনে ভাটা পড়ে গেছে। এ বিষয়ে চুনারুঘাটের পৌর মেয়র মোঃ নাজিম উদ্দিন শামসু জানান, বর্তমানে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে পৌরসভার প্রতি ওয়ার্ডে জীবাণুনাশক ছিটানো হচ্ছে। করোনা সঙ্কটের এই মুহূর্তে অগ্রাধিকার দিয়ে জীবাণুনাশক ছিটানোর এই কার্যক্রম চালানো হচ্ছে। পৌরসভায় মশক নিধনে পৌরসভার প্রতি ওয়ার্ডে মশার ওষুধ ছিটানো হবে বলেও তিনি জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com