সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:২০ অপরাহ্ন

অসুস্থ হয়ে অফিসেই মৃত্যু একজন নারী কর্মকর্তার

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২৮ আগস্ট, ২০১৯
  • ২৮৭ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্টঃ প্রাইম ব্যাংকের ঢাকার উত্তরার জসীমউদ্দীন রোড শাখায় কাজ করার সময় অসুস্থ হয়ে একজন নারী কর্মকর্তার মৃত্যু হয়েছে। ব্যাংকটির সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার গহর জাহান গত সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান বলে তার স্বজনরা জানিয়েছেন।
গহর জাহানের বড় ভাই মারুফ নেওয়াজ বলেন, হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার পর সহকর্মীরা গহরকে হাসপাতালে নিয়ে যান। তবে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। গহর জাহানের বয়স হয়েছিল ৪৩ বছর। তার গ্রামের বাড়ি রাজশাহী শহরের মহিষবাথান এলাকায়। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে উদ্ভিদবিজ্ঞানে লেখাপড়া করে ২০০১ সালে চাকরিতে যোগ দেন তিনি। অবিবাহিত গহর জাহান বড় ভাই মারুফের উত্তরার বাসায় থাকতেন।
ব্যাংকের সিসি ক্যামেরায় ধারণ করা গহর জাহানের অসুস্থ হয়ে পড়ার ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়েছে। এতে দেখা যায়, দুপুর ১২টা ৩৩ মিনিটে ওই কর্মকর্তার ডেস্কে আসেন একজন নারী গ্রাহক। তার কাছ থেকে একটি কাগজ নিয়ে নেড়েচেড়ে দেখছিলেন গহর জাহান। এ সময় একাধিকবার নিজের গালে, নাকে-মুখে, চোখে হাত দিয়ে চেপে ধরতে দেখা যায় তাকে। পাশে রাখা গ্লাস থেকে তিনবার পানিও পান করেন তিনি। আরেকবার পানি পানের সময় তার মাথা সামনে ঝুঁকে টেবিলে লেগে যায়।
সঙ্গে সঙ্গে ওই নারী গ্রাহকসহ আশপাশের সহকর্মীরা এগিয়ে আসেন। তাকে সোজা করে চেয়ারে বসানোর চেষ্টা করেন একজন। কিন্তু চেয়ার থেকে নিচে পড়ে যান গহর জাহান। সেখানে রেখেই কিছুক্ষণ তার সেবা-শুশ্রƒষা করেন সহকর্মীরা। প্রায় ১০ মিনিট পর তাকে নিয়ে হাসপাতালের উদ্দেশে রওনা করেন তারা।
এভাবে সহকর্মীর মৃত্যুতে প্রাইম ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট (জনসংযোগ) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, বিষয়টি আমাদের জন্য খুবই শোকের, খুবই কষ্টের। এভাবে কাজ করা অবস্থায় একজন সহকর্মীর মৃত্যু আমাদের ব্যাংকের সবাইকে মর্মাহত করেছে। ব্যাংকটির ওই শাখার ব্যবস্থাপক শারমিন আক্তার বলেন, আমরা শোকাহত, স্তব্ধ। হাতের ওপর আমার বোন মারা গেলে কী বলব? গতকালই গহর জাহানের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় রাজশাহীতে গ্রামের বাড়িতে। সেখানেই স্থানীয় কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।
সুত্রঃ আমাদের সময়

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com