শনিবার, ২৮ মার্চ ২০২০, ০৫:০৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
বাহুবলে হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন ইউএনও বাহুবলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ৩ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে জরিমানা হবিগঞ্জে নিম্ন আয়ের শ্রমিকদের খাদ্য সামগ্রী দিয়ে বাড়িতে পাঠালেন- ডিসি এনি লস্করের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হয়ে গেল হবিগঞ্জের স্থানীয় পত্রিকার প্রকাশনাও স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস আজ চুনারুঘাটে ২যুবককে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত ওসমানীতে প্রেরণ আটক ১ বাহুবলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ৩ব্যবসায়ীকে ১৫ হাজার জরিমানা চুনারুঘাটে নতুন এসিল্যান্ড মিলটন চন্দ্র পাল চুনারুঘাটে করোনা সংক্রমণ এড়াতে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জীবাণুনাশক ছিটানোহচ্ছে

লন্ডন প্রবাসী প্রেমিকের বাড়ীতে নবীগঞ্জের তরুণীর ঝুলন্ত লাশ

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১ মার্চ, ২০২০
  • ৮ বার পঠিত

ছনি চৌধুরী, নবীগঞ্জ থেকে ॥ লন্ডনী প্রেমিকের ডাকে সাড়া দিয়ে ও লন্ডন যাওয়ার রঙ্গিন স্বপ্নে গভীর রাতে প্রেমিকের সাথে পলায়নের তিন দিনের মাথায় লাশ হয়ে বাড়ি ফিরল নবীগঞ্জের সাহিদা আক্তার (২০)। গত শুক্রবার ভোরে লন্ডন টাওয়ার হ্যামলেটস সিটির সাবেক কাউন্সিলর জয়নাল চৌধুরীর বড়লেখার বাগান বাড়ির দু’তলা থেকে সাহিদা বেগমের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সাহিদার বাড়ি নবীগঞ্জ উপজেলার রাইয়াপুর গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের রব্বান মিয়ার মেয়ে।
গতকাল শনিবার সকালে সরেজমিনে সাহিদার পরিবারের সাথে আলাপ হয় এ প্রতিবেদকের। এসময় তারা অভিযোগ করে বলেন- প্রেমের ফাঁদে পেলে ও লন্ডন যাওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে সাহিদাকে নিয়ে নির্যাতন করে হত্যা করেছে লন্ডন প্রবাসী জয়নাল।
সাহিদার পিতা রব্বান মিয়া বলেন, প্রায় ২০/২৫ দিন পূর্বে বড়লেখার জয়নাল চৌধুরীর সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয় সাহিদার। এক পর্যায়ে তারা প্রেমের সর্ম্পকে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় ৭/৮ দিন পূর্বে লন্ডন প্রবাসী জয়নাল চৌধুরী সাহিদাকে বিয়ে করার জন্য প্রস্তাব নিয়ে বাড়িতে আসেন। কিন্তু জয়নাল চৌধুরী বয়স্ক লোক ও একাধিক বিবাহিত হওয়ায় সাহিদার পরিবার এই বিয়ের প্রস্তাবে রাজি হয়নি। কিন্তু বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখানের বিষয়টি সহজ ভাবে মেনে নিতে পারেনি লন্ডনী জয়নাল। সাহিদাকে কাছে পেতে তৈরী করে নিল নকশা। এক পর্যায়ে সাহিদাকে ফুসঁলিয়ে গত ২৫ ফেব্রুয়ারী গভীর রাতে পরিবারের সদস্যদের অগোচরে বাড়ি থেকে নিয়ে যায় জয়নাল। এরপর থেকে নিখোঁজ ছিল সাহিদা। পরে মোবাইল ফোনে সাহিদা তার পরিবারকে জানায় সে তার প্রেমিক জয়নালের সাথে তার বাড়িতে আছে। তবে অপর একটি সূত্রে জানা গেছে- সাহিদা ও জয়নাল কোর্ট ম্যারেজ করেছেন। স্বামী স্ত্রীর মতো দেখতে ঘনিষ্ট মুহুর্তের একটি ছবিও প্রতিবেদকের কাছে এসেছে।
সাহিদার পিতা রব্বান মিয়ার অভিযোগ- সাহিদাকে নির্যাতন করে হত্যা করেছে জয়নাল ও তার লোকজন। এ ঘটনায় তিনি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। চার বোন দুই ভাইয়ের মধ্যে সাহিদা ছিলেন দ্বিতীয়।
সূত্রে জানা গেছে, বড়লেখা পৌরশহরের আল আমিন মার্কেট ও ফাতেমা হাউজের স্বত্ত্বাধিকারী জয়নাল চৌধুরী একজন ব্রিটিশ নাগরিক। দীর্ঘদিন ধরে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে তিনি লন্ডনে বসবাস করে আসছেন। দেশে আসলে উপজেলার দাসেরবাজার ইউনিয়নের ধর্মদেহী গ্রামের বিলাসবহুল বাড়ি এবং পাশেই পানিশাইল গ্রামে তার নির্মিত অত্যাধুনিক দু’তলা বাগান বাড়িতে বসবাস করেন। এ বাড়িতে দুজন কেয়ারটেকার স্বপরিবারে বসবাস করে আসছে। মনোরঞ্জন বিশ্বাস নামে পানিসাইল গ্রামের এক ব্যক্তি গত বৃহস্পতিবার সকালে জয়নাল চৌধুরীর বাগান বাড়িতে ঘাস কাটতে গিয়ে সদর দরজার ডান পাশের গ্লাস লাগানো রুমে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। তরুণীর রহস্যজনক লাশ দেখে তিনি লোকজনকে জানান। খবর পেয়ে রাতে থানার এসআই শরীফ উদ্দিন একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে গেইট ও দরজা তালাবদ্ধ দেখতে পান। স্থানীয় ইউপি সদস্যকে নিয়ে তালা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে দু’তলার পশ্চিম দক্ষিণের বেডরুমে মেঝের উপর চিত অবস্থায় এক তরুণীর লাশ দেখেন। পরে শুক্রবার ভোরে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।
স্থানীয় লোকজন জানান, গত বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় জয়নাল চৌধুরীকে বাগান বাড়ী থেকে বেরিয়ে যেতে দেখেছেন। এরপর থেকে আর তাকে ওই এলাকায় দেখা যায়নি। মনোরঞ্জন নামের ওই ব্যক্তি সকালে ঘাস কাটতে গিয়ে বাড়ীর নিচ তলার কক্ষে তরুণীর ঝুলন্ত লাশ দেখতে পায়। কিন্তু রাতে লাশটি দু’তলায় কিভাবে গেল এ নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়। রয়েছে নানা আলোচনা সমালোচনা।
বড়লেখা থানার ওসি মোঃ ইয়াছিনুল হক জানান, লন্ডন প্রবাসীর বাড়ির ভেতর থেকে এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই নারীর গলায় চন্দ্রাকৃতির চিহ্ন (দাগ) রয়েছে। ময়না তদন্ত শেষে নিহতের পরিবারের কাছে লাশটি হস্তান্তর করা হয়েছে। গত শুক্রবার লাশটি দাফন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com