সোমবার, ০২ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:২৩ পূর্বাহ্ন

আর্তমানবতার পাশে বাহুবলের সাবেক ইউএনও জসিম উদ্দিন

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৯
  • ১৯ বার পঠিত

শাহ মোহাম্মদ দুলাল আহমেদ:যেখানেই আর্তমানবতার বিপর্যয় সেখানেই তাঁর অবস্থান।মানবিক ভাবে সহযোগিতা করা যেন তাঁর নিত্যদিনের সঙ্গী। গরীব অসহায় নিপীড়িত মানুষের বিপদ আপদের খবর পেলেই তিনি যথাসাধ্য পাশে দাড়ানোর প্রতিজ্ঞা স্ব—স্থানেই করে নেন।

আমি বলতে যাচ্ছি,হবিগঞ্জ ও সিলেটের শ্রেষ্ঠ ইউএনও, জেলার বাহুবল উপজেলার সর্বস্থরের জনগনের নন্দিত নির্বাহী অফিসার মোঃজসিম উদ্দিনের কথা।

বাহুবল উপজেলায় যার নির্বাহী কার্যক্রম ছিল দুই বছর।এ দুই বছরেই তিনি বাহুবল উপজেলাকে তাঁর নিজের জন্ম ভূমির চেয়ে বেশী আপন করে নিয়েছিলেন।

এখন যদিও তিনি উপজেলার সাবেক ইউএনও হয়ে গেছেন।তার পরেও বাহুবলের টান তাঁর হৃদয় থেকে মুচতে পারেই না।

বাহুবলের প্রতিটি মানুষ যেন আপন তার নীড়ে বসবাস করছেন।

এখন ও সেই আগের মতই বাহুবলের অসহায় অর্থপিপাসুদের খোঁজখবর নিচ্ছেন সাধ্যমতো সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন।

উপজেলার সাবেক ইউএনও জসিম উদ্দিন মানবতার ডাকে সাড়া দিলেই সামাজিক যোগাযোগ মাধম ফেইজবুকে দেখা যায় ব্যাপক প্রশংসনীয় অনেক লেখা লিখা।

তারই ধারাবাহিকতায় বাহুবল উপজেলার শংকরপু গ্রামের ক্যান্সার আক্রান্ত তাহমিদ নিয়ে এ প্রতিবেদক দীর্ঘ একমাস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইজবুকে চিকিৎসার জন্য সাহায্য চেয়ে আসছেন।

এরই মাধ্যমে বিষয়টি নজরে নেন জসিম উদ্দিন।
কমেন্টে চিকিৎসা বাবত সাধ্যমতো সাহায্য দেয়ার আশ্বাস দেন।এবং ক্যান্সার আক্রান্ত শিশু তাহমিদের সার্বিক খবরাখবর নেন।

এ প্রতিবেদক জসিম উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করলে তাঁর অফিসে সাক্ষাৎ করার জন্য অনুরোধ করেন।

তারই প্রেক্ষিতে আজ( ১৪ নভেম্বর) রোজ বৃহস্পতিবার সহযোগিতা গ্রহণের জন্য সিলেট সিটি কর্পোরেশনে ক্যান্সার আক্রান্ত তাহমিদের পিতা মাহমুদুল হাসান,প্রভাষক মোঃইয়াকুত মিয়া,সাংবাদিক শাহ মোহাম্মদ দুলাল আহমেদ উপস্থিত হলাম।

মানবতার ফেরীওয়া বাহুবলের তিন লোককে দেখেই খুব আনন্দিত হন।নেন বাহুবলের সার্বিক খোঁজখবর।জানতে চান বাহুবল বাসী কেমন আছে।

তার পর ক্যান্সার আক্রান্ত তাহমিদের পিতার নিকট থেকে তাহমিদের খোঁজখবর নেন।

এসময় তিনি তাঁর অধীনস্থ চারটি রাজস্ব শাখায় সকল কর্মকর্তাদের ক্যান্সার আক্রান্ত তাহমিদের চিকিৎসার জন্য সাধ্যমতো সহযোগিতা করনের নির্দেশনা দেন।মাত্র কিছুক্ষনের মধ্যে কালেকশন করা শেষ হয়ে যায়।

সবকিছু মিলিয়ে এবং সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা জসিম উদ্দিনের ব্যক্তিগত সহযোগিতায় মোট সতের (১৭) হাজার টাকা তাহমিদের পিতা মাহমুদুল হাসানের হাতে প্রদান করা হয় ।

তিনি এসময় ক্যান্সার আক্রান্ত তাহমিদের চিকিৎসার জন্য বিত্তশালীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

এ সহযোগিতা পেয়ে তাহমিদের পিতা মাহমুদুল হাসান বলেন,বাহুবলের সাবেক ইউএনও জসিম উদ্দিনের নিকট চিরঋণী হয়ে থাকব আমি।তারই সাথে পুরো বাহুবলবাসী ও চিরঋণী থাকল।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com