মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ০১:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
চুনারুঘাটে ঈদের আনন্দ নেই খুন হওয়া কিশোর রাব্বীর পরিবারে সাতছড়ি উদ্যানে মানুষের ঢল, একাধিক দুর্ঘটনা ঈদের আনন্দ ছড়িয়ে দিতে অসহায়দের বাড়ি বাড়ি গিয়ে এনি লস্করের ঈদ বস্ত্র বিতরণ বাহুবলবাসীকে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পাঁচ গ্রাম নেতা ফয়সল আহমেদ করোনায় নিস্তব্ধ কমলারাণীর দিঘী, নেই দর্শনার্থী-পর্যটকদের পদচারণ চুনারুঘাটে রাতের আধারে ৫’শত দরিদ্র পরিবারকে ত্রান দিলেন সৈয়দ লিয়াকত হাসান। চুনারুঘাট প্রবাসী সুন্নী সংগঠনের উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ চুনারুঘাট এসোসিয়েশন ইউকে ও শায়েস্তাগঞ্জ সমিতির যৌথ উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ চুনারুঘাটে কৃষকদের মাঝে সেনা বাহিনীর বীজ বিতরন চুনারুঘাটে মাদক ব্যবসায়ীর ছুরিকাঘাতে আহত কিশোর রাব্বির মৃত্যু

শ্রীলঙ্কায় বন্ধ হল ফেসবুক-ম্যাসেঞ্জার

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৩ মে, ২০১৯
  • ১০৪ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্কঃ শ্রীলঙ্কায় মসজিদ ও মুসলিমদের দোকানপাটে স্থানীয়দের হামলার জের ধরে ফেসবুক-ম্যাসেঞ্জারসহ একাধিক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আজ সোমবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গতকাল রোববার ফেসবুকে শুরু হওয়া বিতর্কের সূত্র ধরে এই হামলা চালানো হয়। দেশটির পশ্চিম উপকূলীয় শহর চিলাওতে মসজিদ ও মুসলিমদের দোকানপাটে পাথর ছুড়েছে স্থানীয় লোকজন। এ সময় এক ব্যক্তিকে বেধড়ক মারধরও করা হয়েছে। এ ঘটনার পর সেখানে কারফিউ জারি করেছে প্রশাসন।

এ ঘটনায় আব্দুল হামিদ মোহাম্মদ হাসমার নামে ৩৮ বছর বয়সী এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তার ফেসবুকের একটি পোস্ট থেকেই ঘটনার সূত্রপাত ঘটে। হাসমার তার পোস্টে লিখেন, ‘বেশি হেসো না, একদিন তোমাদেরও কাঁদতে হবে।’ একইসঙ্গে হুমকিস্বরূপ নানা সহিংসতার কথা উল্লেখ করা হয়।

হাসমারের পোস্টকে ‘ভীতিপ্রদর্শন’ হিসেবে মনে করে স্থানীয় লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে বেধড়ক পিটিয়েছে। তবে ফেসবুকে সত্যিকার কথোপকথন কী ছিল, তা জানা যায়নি।

তবে ইতিমধ্যেই এলাকার স্থানীয়রা হাসমারের মুক্তির জন্য দাবি জানিয়েছে। আর তাই পরিস্থিতি সামাল দিতে কারফিউ জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র সুমিত আটাপাতু।

দেশটির সরকারি তথ্য বিভাগের মহাপরিচালক নালাকা কালুয়েভা বলেন, ‘দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা বাজায় রাখার জন্য অস্থায়ীভাবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলো বন্ধ রাখা হচ্ছে।’

২১ এপ্রিল শ্রীলঙ্কার তিনটি চার্চ ও চারটি বিলাসবহুল হোটেলে ধারাবাহিক আত্মঘাতী বোমা হামলায় ৪২ বিদেশি নাগরিকসহ ২৫০ জন নিহত হন। আহত হন পাঁচ শতাধিক। এই হামলার পর থেকেই দেশটিতে অরাজকতা বিরাজ করছে। নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছে সেখানকার মুসলমানরা।
সৌজন্যেঃ দৈনিক আমাদের সময়

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com