শনিবার, ১৮ মে ২০১৯, ০২:২০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
মাধবপুরে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী রতন গ্রেফতার শায়েস্তাগঞ্জ মহাসড়কে ট্রাক সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ১ আহত ৫ বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির উপ-শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত মিজান হবিগঞ্জ জেলা পুলিশের উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবিগঞ্জের জনকন্ঠ সংবাদদাতা তুহিন হত্যা চেষ্টার আসামি মেহেদী গ্রেফতার বাহুবলে করাঙ্গী নদীতে বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ বহমান,জন দূর্ভোগ চরমে সর্বনিম্ন ফিতরা এ বছর ৭০ টাকা মোতাব্বির হোসেন আওয়ামী লীগের দুর্দিনে হাল ধরেছিলেন -এমপি আবু জাহির মাধবপুরে ৫০ কেজি গাজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব হবিগঞ্জের কৃতিসন্তান ওসি আব্দুছ ছালেক শ্রীমঙ্গল থানায় যোগদান

হবিগঞ্জে হত্যা মামলায় ছয়জনের যাবজ্জীবন

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৮ এপ্রিল, ২০১৯
  • ২৪ বার পঠিত
নুর উদ্দিন সুমন।।  হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে কৃষক তোতন মিয়া হত্যা মামলায় ছয়জনকে যাবজ্জীবন ও ১৪ জনকে খালাস দিয়েছে আদালত। এসময় দণ্ডিতদের ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরো দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়।
সোমবার দুপুরে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এসএম নাছিম রেজা এ রায় দেন।
দণ্ডিতরা হলেন-উপজেলার জলসুখা শংকমোহন গ্রামের সফর আলীর ছেলে মোশাহিদ মিয়া, সামছুল হকের ছেলে মোহন মিয়া, বাগহাটি গ্রামের আলম মৌলার ছেলে জিয়াউর রহমান, আটপাড়া গ্রামের রহমান উল্লাহর ছেলে ওয়াহাব উল্লাহ, মধ্যপাড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে চান মিয়া ও মির্কা গ্রামের বিনন মিয়ার ছেলে দিলু মিয়া। রায়ের সময়ে মোশাহিদ মিয়া ও জিয়াউর রহমান উপস্থিত ছিল। বাকী চার আসামি পলাতক রয়েছেন।
হবিগঞ্জের কোর্ট ইন্সপেক্টর আল আমিন হোসেন বলেন, উপজেলার জলসুখা শংকরমোহন গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে কৃষক তোতন মিয়া আসামি মোশাহিদ মিয়ার জলমহালে বাবুর্চির কাজ করতেন। তাদের মধ্যে বিরোধ থাকায় ২০০৫ সালের ৩০ অক্টোবর সন্ধ্যায় তোতনকে ডেকে  নিয়ে জলমহালের পাশের ক্ষেতে জবাই করা হয়। পরে এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী আনোয়ারা আক্তার বাদী হয়ে ২০ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত শেষে তৎকালীন আজমিরীগঞ্জ থানার ওসি শ্যামল কান্তি বড়ুয়া ২০০৬ সালের ১৯ মার্চ ২০ জনকেই আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলায় ২৬ স্বাক্ষীর মধ্যে ১৫ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে এ রায় দেয়া হয়। এতে ছয়জনকে যাবজ্জীবন ও অপরাধে সম্পৃক্ততা না থাকায় বাকীদের খালাস দেয়া হয়।
বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডডেভোকেট আব্দুল আহাদ ফারুক বলেন, রায়ে বাদী পক্ষ খুশি হয়েছে। তবে কয়েকজন আসামি খালাস পাওয়ায় কিছুটা হতাশ। এ বিষয়ে পরবর্তীতে আইনি পদক্ষেপ নিবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com