শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:২০ অপরাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীর উপহার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের ঘর পেলো ৭৪টি পরিবার

নুর উদ্দিন সুমন, বার্তা সম্পাদক
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১০৭ বার পঠিত

নুর উদ্দিন সুমন: ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর হস্তান্তর করতে পেরে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আজকে আমার অত‌্যন্ত আনন্দের দিন। শনিবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর প্রদান কর্মসূচির উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে (২৩ জানুয়ারি) সকালে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার ৭৪টি সহ জেলার ৩২৫টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর এবং দলিল হস্তান্তর করেন তিনি । আয়োজিত অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা বলেন, আজকে আমার অত্যন্ত আনন্দের দিন। গৃহহীন পরিবারকে গৃহ দিতে পারছি, এটি আমার সবচেয়ে আনন্দের।

তিনি বলেন, আমার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের কথাই ভাবতেন। আমাদের পরিবারের লোকদের চেয়ে তিনি গরীব অসহায় মানুষদের নিয়ে বেশি ভেবেছেন এবং কাজ করেছেন। এই গৃহ প্রদান কার্যক্রম তারই শুরু করা।

এ সময় লাইভে যুক্ত ছিলেন- এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সত্যজিত রায় দাশের সঞ্চালনায় লাইভে যুক্ত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মো: মশিউর রহামান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য ডাঃ মুসফিক হোসেন চৌধুরী, হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা, জাতীয় পরিষদ সদস্য শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, চুনারুঘাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল কাদির লস্কর, সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আবু তাহের, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট আকবর হোসেন জিতু, চুনারুঘাট থানার ওসি মো: আলী আশরাফ, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ মাসুদ রানা,
পিআইও প্লাবন পাল, ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ূন কবির সনজু চৌধুরীসহ, বিভাগীয় কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, দলীয় নেতাকর্মী ও উপকারভোগীরা। উপকারভোগীদের মধ্যে নাজমুল হুদা এবং প্রকল্প বাস্তবায়নে সরাসরি যুক্ত সহকারি কমিশনার মিল্টন পাল চন্দ্র পাল বক্তব্য রাখেন।
এসময় প্রধানমন্ত্রী হবিগঞ্জের চুনারুঘাট তথা জেলাবাসীকে ধন্যবাদ জানান এবং আগামীতে উপজেলার সকল গৃহহীন ও ভুমিহীনকে আবাসনের ব্যবস্থা করবেন। তিনি বলেন, কেউ গৃহহীন থাকবে না, মুজিববর্ষে সকল অসহায়, দুস্ত ও গৃহহীনকে ঘর দেওয়ার কথা পুনরায় ব্যক্ত করেন। মুজিববর্ষ উপলক্ষে আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় জেলায়৭৮৭ জন মানুষকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে পাকাঘর উপহার দেয়া হচ্ছে প্রথম পর্যায়ে ঘর পেল ৩২৫ পরিবার। আগামী মাসে আরও বাকী পরিবারগুলো বাড়ি পাবে। অনুষ্ঠানে আশ্রয়ন প্রকল্পের তৈরি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়।

আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর পরিচালক মো. মাহবুব হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, পৃথিবীতে এটিই প্রথম এবং একমাত্র ঘটনা; একসঙ্গে এতো মানুষকে জমির মালিকানা দিয়ে পাকা ঘর করে দেয়া। এটি মূলত মুজিববর্ষে গরীব ও অসহায় মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার।

তথ্য মতে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে মুজিববর্ষ ঘোষণা করে সরকার। মুজিববর্ষে কেউ গৃহহীন থাকবে না- এ লক্ষ্য বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে আশ্রায়ন-২ প্রকল্পের অধীনে চলমান কর্মসূচির প্রথম পর্যায়ে সারাদেশের ন্যায় জেলায়৭৮৭ জন মানুষকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে পাকাঘর উপহার দেয়া হচ্ছে প্রথম পর্যায়ে ঘর পেল ৩২৫ পরিবার। দেশের ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ঘর করে দিতে এখন পর্যন্ত প্রায় ৯ লাখ পরিবারকে তালিকাভূক্ত করেছে শেখ হাসিনা সরকার।

প্রতিটি ঘর দুই কক্ষ বিশিষ্ট। এতে দুটি রুম ছাড়াও সামনে একটি বারান্দা, একটি টয়লেট, একটি রান্নাঘর এবং একটি খোলা জায়গা থাকবে।

আশ্রয়ণ প্রকল্পের উদ্দেশ্য হলো- ভূমিহীন, গৃহহীন, ছিন্ন অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীর পুনর্বাসন, ঋণপ্রদান ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহে সক্ষম করে তোলা এবং আয় বাড়ে এমন কার্যক্রম সৃষ্টির মাধ্যমে দারিদ্র্য দূরীকরণ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2019 Prothomsheba
Theme Developed BY ThemesBazar.Com